মসজিদের সামনে নাচ-গানের জন্য চিত্র নায়িকাকে আইনি নোটিশ : ক্ষমা চাইলেন মুনমুন

দ্বারা hello@anbnews24.com
মসজিদের সামনে নাচ-গানের জন্য চিত্র নায়িকাকে আইনি নোটিশ : ক্ষমা চাইলেন মুনমুন

সখিপুর (টাঙ্গাইল) : টাঙ্গাইলের সখীপুরে মসজিদের পাশে নাচ ঘটনায় চিত্রনায়িকা মুনমুনকে লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের এক আইনজীবী।
বুধবার (৯ সেপ্টেম্বর) সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. মেহেদী হাসান নোটিশটি পাঠান। নোটিশে মসজিদের সামনে নাচের কর্মকাণ্ডকে নাজায়েজ ও বাংলাদেশের আইনবহির্ভূত বলে উল্লেখ করা হয়েছে।
জানা যায়, গত শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) টাঙ্গাইলের সখিপুর পৌর এলাকার স্থানীয়দের সঙ্গে নৌকা ভ্রমণে যান মুনমুন। শাইলসিন্দুর নদীতে নৌকা ভ্রমণ শেষে দুপুরে পলাশতলী বাজারে খাওয়া-দাওয়া শেষে আয়োজনকদের অনুরোধে নাচেন মুনমুন।
উপস্থিত অনেকেই সেই নাচের দৃশ্য ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করেন। ভিডিওতে দেখা যায়, মুনমুন যেখানে নাচছেন, তার পেছনেই একটি ঘরে ‘মসজিদ’ সাইনবোর্ড লাগানো। এ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় ওঠে।
এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে মুনমুনকে পাঠানো নোটিশে আইনজীবী মেহেদী হাসান বলেন, পলাশতলী বাজার মসজিদের সামনে ‘অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ’ নৃত্য উপস্থাপন করেছেন চিত্রনায়িকা মুনমুন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ নাচের ছবি ছড়িয়ে পড়লে মুসলিমদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দেয়।

ধর্মীয় উপাসনালায় ও মসজিদের সামনে নাচ-গানের কোনো বিধান নেই এবং এ কার্যক্রম ধর্মের সঙ্গে সাংঘর্ষিক উল্লেখ করে নোটিশে বলা হয়, এরকম নৃত্য পরিবেশনা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত ও ধর্মীয় চর্চায় বাধার সামিল। ফলে এটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ।
এতে আরও বলা হয়, ‘যেহেতু ইসলাম ধর্ম অনুযায়ী মসজিদ অথবা ধর্মীয় উপাসনালয়ের সামনে নৃত্য পরিবেশনের কোনো বিধান নেই এবং বাংলাদেশে প্রচলিত আইনও একে সমর্থন করে না, ফলে আপনার এ ধরনের কর্মকাণ্ড নাজায়েজ ও বাংলাদেশের আইন বহির্ভূত।’
এ পরিস্থিতিতে নোটিশ পাওয়ার তিন দিনের মধ্যে দুইটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় মসজিদের সামনে অশ্লীল নাচ-গান/নৃত্য পরিবেশনের জন্য মুনমুনকে ক্ষমা ও দুঃখপ্রকাশ করতে বলা হয়েছে। তা না করলে তার বিরুদ্ধে দেশের প্রচলিত আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান আইনজীবী।
মুনমুন বলেন, ‘আমি কি অন্য ধর্মের লোক যে মসজিদের সামনে নাচবো? আমি কখনই কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে সজ্ঞানে আঘাত হবে- এমন কাজ করবো না। আমি যদি জানতাম ওখানে মসজিদের রয়েছে তাহলে নাচতাম না কখনই। তারপরেও যদি আমার এই ঘটনায় কেউ আঘাত পেয়ে থাকেন তাহলে সকলের কাছে আমি ক্ষমা চাইছি।তবে আয়োজকদের বিরুদ্ধে কোন কথা বলাহয়নি । যদিও মুনমুন আ্নইনজীবির নোটিশে ক্ষমা চেয়েছেন কিন্ত; আয়োজকরা স্থানটি নির্দ্ধারীত করেছেন জেনে শুনে । তাদের জন্য কি আইনী  ব্যবস্থা রয়েছে ? 

শেয়ার করুন
0 মন্তব্য

মতামত দিন

Related Articles