রৌমারীতে অসামাজিক কাজের প্রতিবাদ করায় পিটিয়ে আহত

দ্বারা hello@anbnews24.com
কুড়িগ্রাম: (রৌমারী) প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের রৌমারীতে অসামাজিক কাজ, মাদক ব্যবসা, মাদক সেবন, নারী ভাড়া করাসহ নানা অপকর্মে বাধা দেওয়ায় নুরুল আমিন নামের এক ব্যক্তিকে এলোপাথারী পিটিয়ে আহত করেছে মাদক ব্যবাসীয় রাজু আহমেদ। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার বিকেলের দিকে উপজেলার শৌলমারী ইউনিয়নের চেংটাপাড়া গুচ্চু গ্রামে।স্থানীয়রা আহত ব্যক্তিকে উদ্ধার করে রৌমারী হাসপাতালে ভর্তি করেন। এ ঘটনায় নুরুল আমিন বাদি হয়ে রৌমারী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার শৌলমারী ইউনিয়নের চেংটাপাড়া গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে রাজু আহমেদ (৩৩) দীর্ঘদিন থেকে চেংটাপাড়া গুচ্চুগ্রামে মাদক ব্যবসা করে আসছে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে মোবাইল ফোনে প্রেম করে অর্থের লোভ দেখিয়ে এবং বিয়ের প্রলোভনে বিভিন্ন কৌশলে বিবাহিত অবিবাহিত সুন্দরী মেয়েদের ডেকে নিয়ে এসে পালাক্রমে ধর্ষণ করে আসছে এই বখাটে রাজু। দীর্ঘদিন থেকে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে আসা নারী, মাদক ব্যবসা ও মাদক সেবন করে আসছে ওই গুচ্চুগ্রামে। রাজুর এসব ব্যপারে একাধিকবার গ্রাম্য সালিশ বিচার হলেও তার দৌরাত্ব থামেনি।তার অপকর্মের বাধা দেওয়ায় গত রোববার একই গ্রামের আজিজুল হক মোক্তারের ছেলে নুরুল আমিনকে কৌশলে অন্য লোক দিয়ে ডেকে নিয়ে তাকে এলোপাথারি মারপিট করে । নুরুল আমিন রৌমারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে। সম্প্রতি গত ৭ সেপ্টেম্বর টাঙ্গাইল থেকে দুই সন্তানের জননীকে মোবাইল ফোনে অর্থের লোভ ও বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ডেকে নিয়ে এসে ওই গুচ্ছগ্রামে ১৫ নম্বর ঘর মালিক ফাইজুলের ঘরে আটকিয়ে রেখে রাজু মেয়েটিকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় আশপাশের লোকজন জানতে পেরে গ্রাম্য পুলিশ, ইউপি সদস্যসহ মেয়েটিকে উদ্ধার করে শৌলমারী ইউনিয়ন পরিষদ হেফাজতে রাখে। পরদিন রাত আনুমানিক ৭টায় শৌলমারী ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান, ইউপি সদস্য, রাজনৈতিক নেতাকর্মী ও গ্রামবাসির উপস্থিতে সালিশ বৈঠকের সিদ্ধান্ত মোতাবেক মেয়েটিকে তার পরিবার সদস্যের হাতে তুলেদেন। ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান পালিয়ে থাকা রাজুর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনান্তে আটক করে পুলিশের হাতে সোপর্দ করার নির্দেশ দেন গ্রাম পুলিশকে। এ ঘটনায় জরিত রাজু আহমেদ এর সাথে মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে তিনি কোন সঠিক উত্তর দেন নি । এ বিষয়ে শৌলমারী ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হাবিল বলেন, অভিযুক্ত রাজুর ব্যাপারে গ্রামবাসি আমার কাছে অনেক অভিযোগ করেছে। আমি তাকে আটক করে থানায় সোপর্দ করার নির্দেশ দিয়েছি। রৌমারী থানার ওসি আবু মো.দেলওয়ার হাসান ইনাম জানান, একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কুড়িগ্রাম: (রৌমারী) প্রতিনিধি:  কুড়িগ্রামের রৌমারীতে অসামাজিক কাজ, মাদক ব্যবসা, মাদক সেবন, নারী ভাড়া করাসহ নানা অপকর্মে বাধা দেওয়ায় নুরুল আমিন নামের এক ব্যক্তিকে এলোপাথারী পিটিয়ে আহত করেছে মাদক ব্যবাসীয় রাজু আহমেদ। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার বিকেলের দিকে উপজেলার শৌলমারী ইউনিয়নের চেংটাপাড়া গুচ্ছ গ্রামে।স্থানীয়রা আহত ব্যক্তিকে উদ্ধার করে রৌমারী হাসপাতালে ভর্তি করেন। এ ঘটনায় নুরুল আমিন বাদি হয়ে রৌমারী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার শৌলমারী ইউনিয়নের চেংটাপাড়া গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে রাজু আহমেদ (৩৩) দীর্ঘদিন থেকে চেংটাপাড়া গুচ্ছ গ্রামে  মাদকব্যবসা করে আসছে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে মোবাইল ফোনে প্রেম করে অর্থের লোভ দেখিয়ে এবং বিয়ের প্রলোভনে বিভিন্ন কৌশলে বিবাহিত অবিবাহিত সুন্দরী মেয়েদের ডেকে নিয়ে এসে পালাক্রমে ধর্ষণ করে আসছে এই বখাটে রাজু। দীর্ঘদিন থেকে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে আসা নারী, মাদক ব্যবসা ও মাদক সেবন করে আসছে ওই গুচ্ছ গ্রামে। রাজুর এসব ব্যপারে একাধিকবার গ্রাম্য  সালিশ বিচার হলেও তার দৌরাত্ব থামেনি।তার অপকর্মের বাধা দেওয়ায় গত রোববার একই গ্রামের আজিজুল হক মোক্তারের ছেলে নুরুল আমিনকে কৌশলে অন্য লোক দিয়ে ডেকে নিয়ে তাকে এলোপাথারি মারপিট করে । নুরুল আমিন রৌমারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।

সম্প্রতি গত ৭ সেপ্টেম্বর টাঙ্গাইল থেকে দুই সন্তানের জননীকে মোবাইল ফোনে অর্থের লোভ ও বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ডেকে নিয়ে এসে ওই গুচ্ছগ্রামে ১৫ নম্বর ঘর মালিক ফাইজুলের ঘরে আটকিয়ে রেখে রাজু মেয়েটিকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

এ ঘটনায় আশপাশের লোকজন জানতে পেরে গ্রাম্য পুলিশ, ইউপি সদস্যসহ মেয়েটিকে উদ্ধার করে শৌলমারী ইউনিয়ন পরিষদ হেফাজতে রাখে। পরদিন রাত আনুমানিক ৭টায় শৌলমারী ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান, ইউপি সদস্য, রাজনৈতিক নেতাকর্মী ও গ্রামবাসির উপস্থিতে সালিশ বৈঠকের সিদ্ধান্ত মোতাবেক মেয়েটিকে তার পরিবার সদস্যের হাতে তুলেদেন।

 ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান পালিয়ে থাকা রাজুর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনান্তে আটক করে পুলিশের হাতে সোপর্দ করার নির্দেশ দেন গ্রাম পুলিশকে।

 এ ঘটনায় জরিত রাজু আহমেদ এর সাথে মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে তিনি কোন সঠিক উত্তর দেন নি ।

এ বিষয়ে শৌলমারী ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হাবিল বলেন, অভিযুক্ত রাজুর ব্যাপারে গ্রামবাসি আমার কাছে অনেক অভিযোগ করেছে। আমি তাকে আটক করে থানায় সোপর্দ করার নির্দেশ দিয়েছি।

রৌমারী থানার ওসি আবু মো.দেলওয়ার হাসান ইনাম জানান, একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

শেয়ার করুন
0 মন্তব্য

মতামত দিন

Related Articles