ভাসানচরের পথে আরো আড়াই হাজার রোহিঙ্গা

দ্বারা hello@anbnews24.com
ভাসানচরের পথে আরো আড়াই হাজার রোহিঙ্গা

হুমায়ুন কবির জুশান,(উখিয়া(কক্সবাজার):কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে আগুনের ভয়ে আর শান্তির খোঁজে স্বেচ্ছায় ভাসানচরে যাচ্ছে রোহিঙ্গারা।

সরেজমিন রোহিঙ্গা ক্যাম্প ঘুরে ও তাদের সাথে কথা বলে যানা যায়, এক রোহিঙ্গা অন্য রোহিঙ্গার প্রতি দোষ চাপাচ্ছেন।

১১ নং ক্যাম্পের রোহিঙ্গা জিয়াউর রহমান বলেন, সম্প্রতি আগুনে পুড়ে সব কিছু শেষ হয়ে গেছে। আমার ছোট বোন তার পরিবারের সবাইকে নিয়ে ৯ নং ক্যাম্পে থাকতেন। আগুনে সব শেষ হয়ে গেলেও এখনো প্রতিদিন বা রাতে ক্যাম্পর কোথাও না কোথাও আগুন দিয়ে আবার জ্বালিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছে। এতে অনেকেই মনে করছেন, কুতুপালং রেজিষ্টার্ট ক্যাম্পের রোহিঙ্গাদের সাথে আন-রেজিষ্টার্ট ক্যাম্পের আধিপত্য নিয়ে দীর্ঘদিন বিরোধ চলে আসছিল। তাই এক পক্ষ অন্য পক্ষকে ঘায়েল করতে এ সব ঘটনায় জড়িত থাকতে পারেন বলে মন্তব্য করেছেন।

তাই খুনাখুনি ও আগুনে পুড়ে মরার চেয়ে ভাসান চরে যাওয়াটাকে অনেকেই নিরাপদ মনে করছেন। রোহিঙ্গা স্থানান্তর প্রক্রিয়ায় ষষ্ঠ দফায় কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফের বিভিন্ন ক্যাম্প থেকে স্বেচ্ছায় আরো রোহিঙ্গা নোয়াখালীর ভাসানচরের পথে রওনা হয়েছেন।

মঙ্গলবার দুপুর ও বিকালে ৪৫ বাসে করে দুই হাজার ৪৯৫ রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ ও শিশু নিয়ে উখিয়া ডিগ্রি কলেজ মাঠ থেকে চট্টগ্রামের বিএন শাহীন কলেজের ট্রানজিট ক্যাম্পের পথে রওয়ানা হয়। বুধবার সকালে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর তত্ত্বাবধানে জাহাজে করে তাদের ভাসানচরে নেওয়া হবে।

শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনের অতিরিক্ত কমিশনার শামসুদ্দৌজা জানান, কয়েক ধাপে এখন পর্যন্ত প্রায় ১৫ হাজারের মতো রোহিঙ্গা ভাসানচরে গেছে। এই দফায় আড়াই হাজারের মতো রোহিঙ্গা ভাসানচর যেতে রাজি হয়েছে। যারা যেতে ইচ্ছুক তাদের নিবন্ধনের মাধ্যমে ধাপে ধাপে ভাসানচর নেওয়া হবে। এভাবে পর্যায়ক্রমে এক লাখ রোহিঙ্গাকে নেওয়া হবে ভাসানচরে।

উল্লেখ্য, এই প্রক্রিয়ায় ৪ ডিসেম্বর থেকে এ পর্যন্ত ১৫ হাজারের মতো রোহিঙ্গা ভাসানচর গেছেন।

 

শেয়ার করুন
0 মন্তব্য

মতামত দিন

Related Articles