তাবিজ কাহিনী নালিতাবাড়ীতে শো-বিজ

দ্বারা hello@anbnews24.com
তাবিজ কাহিনী নালিতাবাড়ীতে শো-বিজ

লালমোহাম্মদ ……

এই একুশ শতকে  তাবিজ-কবজে বিশ্বাস করে মানুষ?  বিশ্বাস করলেও খুব বেশী নয় । তরঙ্গ বিপ্লব হলেও আমাদের চিন্তা-চেতনার বিপ্লব হয়নি বোঝা যায় । আমরা সামাজিক গনমাধ্যমে বিভিন্ন সংবাদ পেয়ে থাকি । গনমাধ্যমের তথ্য ভান্ডার মনে করা হয় সামজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইস বুককে ।এ মাধ্যম একটি অনিয়ন্ত্রিত মাধ্যম হওয়ার সুবাধে সকল মানুষের কথা বলার ও  লেখার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে । সত্য, মিথ্যা ও  গুজব সহ নানা  মতামত  প্রচার  প্রকাশ -এখানে হয় । সচেতন মানুষ গুলো ও  সরকারের বিভিন্ন দপ্তর পর্যবেক্ষন করেন এবং  বুঝে নেন কোনটা কি ? এভাবেই আমরা এ গুচ্ছি ।এ গুচ্ছে মাল্টিমিডিয়ার যুগ । ভালোর পাশাপাশি মন্দ সমান্তরাল  সকলের জানা ।এ মাধ্যমে কোনটা সত্য কোনটা মিথ্যা ঠাহর করা  খুব মুশকিল । তবুও বোঝা যায় সত্য-মিথ্যা কোনটা , কোনটা পক্ষপাতমুলক।

নালিতাবাড়ীর একজন ইমাম তাবিজ বিক্রি করেছেন । তার তাবিজের কারনে ৮ম শ্রেনী ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।আবার ভালো হওয়ার তাবিজও-কবজ  ওই ইমামই দিয়েছেন বলেও কথা উঠে আসছে  । এও জানাগেছে এবিষয়কে  এ বিষয়কে কেন্দ্র করে একটি বাড়ি-ঘরে হামলা হয়েছে ।  স্থানীয় ভাবে প্রতিবাদের দানাবাধঁতে শুরু করেছ ।ওই ইমাম অভিযোগ তুলেছেন চেয়ারম্যান মহোদয় তাকে চড়-থাপ্পর দিয়েছেন,  এই বিষয়টি ইস্যু হয়েছে । ঘটনাটি নালিতাবাড়ী উপজেলার পোড়াগাও ইউনিয়নের শান্তীর মোড় এলাকার শান্তীর মোড় জামে মসজিদের ইমাম সাইফুল ইসলাম তাবিজ কবজ করে মেয়ে মানুষকে অসুস্থ করেছেন । মেয়েটির প্রেমিকা ইমাম সাহেব কে দিয়ে তাবিজ-কবজ করেছে।

দেশের প্রথম সারির পত্রিকা সহ অনলাইন, ইউটিউব চ্যানেলে ফেবুক পেইজে কেউ কেউ চেয়ারম্যানের চড়-থাপ্প্ড় আবার কেউ কেউ তাবিজকবজ কে গুরুত্ব দিয়ে সংবাদটি করেছেন।

কোন  অপরাধ কোনটি বড় কোনটি ছোট বিবেচনা নয় । অপরাধ অপরাধই।তাবিজ-কবজের অভিযোগ আমরা হর হামেশাই পেয়ে থাকি । হুজুরদের তাবিজ-কবজ,পানিপড়া, কবিরাজি জিনভুত ছাড়ানি ইত্যাদি কিছুমানূষ এখনও বিশ্বাস করে । তাই তারা মানুষের অন্ধবিশ্বাসকে  পুঁজি করে জেনেশুনে  ইমাম মূযাজ্জিন, মৌলভি সহ নামধারী কবিরাজরা মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছে । এই অপরাধের বিরুদ্ধে কেউ কথা বলেনা ।অভিযোগ করেনা । 

চেয়ারম্যান সাহেবদের কে  সামাজিক বিচারের দায়িত্ব দিয়েছেন গ্রাম আদালতের মাধ্যমে । ইমাম সাহেবের বিরুদ্ধে তার  নিকট অভিযোগ পেয়ে বিচার করেছেন,  না ক্ষমতা বলে গিয়ে করেছেন ?   কিছু অপরাধের শাস্তি দিতে গিয়ে অনেক সময় শারিরীক ভাবে মারধর করেন, কিন্ত কেউ অপরাধীর পক্ষ নিয়ে কেউ তোলপার করেনা প্রতিবাদ করেনা । তবুও আমরা দেখলাম গনমাধ্যমে  একজন ইমাম তাবিজ কবজ দেওয়ার কারনে সামাজিক বিশৃঙ্খলা । 

 তাবিজ-কবজ-চড়-থাপ্পড় নিয়ে লঙ্কাকান্ড। এবার অভিযোগ তাবিজ কবজ করে  মানুষকে অসুস্থ করার বিচার শলিশে চড় থাপ্পর মারা । অভিযোগ দুটি তাবিজ কবজ করা সে অপরাধে চড় থাপ্পর মারা । ডিম আগে না  মুরগী আগে ? 

এবিষয়ে স্থানীয় প্রশাসন গনমাধ্যমকে জানিয়েছেন বিষয়টি তারা জানেন । লিখিত অভিন্ন ঘটনার অিভিযোগ রয়েছে।তারা বিষয়টি পর্যবেক্ষনে রেখেছেন ।

ঘটনা প্রবাহে- তাবিজ-কবজ করা ,চেয়ারম্যানের নিকট অভিযোগ দেওয়ার পর শালিশ বসা সহ সকল ঘটনাই মানুষের সামনে।অনেই অনেকের মতো উপস্থাপন কেরেছেন । তবে উপরোক্ত বিষয়গুলো কেউ আঁড়াল করতে পারছে না। প্রত্যেক অপরাধের শাস্তী আমরা কামনা করি ।   মানুষের সামনে চলে আসছে এখন ইমাম সাহেবকে কেন চেয়ারম্যান থাপ্পর মেরেছে? ।তাবিজ বিক্রেতাকে থাপ্পর মারার প্রতিবাদে দানাবাধঁছে।

চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ইমাম সংশ্লিষ্ট কতৃর্পক্ষের নিকট কোন লিখিত অভিযোগ করেছে কিনা অনেকের জানানেই ।

থেমে নেই  তাবিজ কবজের শো-বিজ ।কেউ হাই তুলছে তাল গাছের মাথায় পচঁন , কেউ বলছে গোড়ায়।পঁচন তোঁ আছে নিশ্চই । 

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ  ইলেক্শন  কে হবেন ?  নৌকার সিলেকশন কে হবেন আগামী চেয়ারম্যান ?   মাওলানা আলহাজ্ব জামালউদ্দিন  ও আলহাজ্ব আজাদ মিয়া, প্রতিদ্বন্ধি দুই প্রার্থীর তুরুপের তাস   এখন ইমাম সাইফুল ।

সর্বোপরি এঘটনায় কেন্দ্র করে কেউ যেন কোন অপ্রত্যাশীত ঘটনা না ঘটায় প্রশাসন ও রাজনৈতিক কনর্ধারদের সু-নজর রাখা জরুরী।          

        

শেয়ার করুন
0 মন্তব্য

মতামত দিন

Related Articles