জাককানইবি শিক্ষার্থীদেরসেমিস্টার ফি মওকুফ ও হল খোলার দাবি

দ্বারা hello@anbnews24.com
জাককানইবি শিক্ষার্থীদেরসেমিস্টার ফি মওকুফ ও হল খোলার দাবি

জাককানইবি প্রতিনিধি: জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষা আগামী ১৩ জুন থেকে স্ব শরীরে অনুষ্ঠিত হবে । তবে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি বিবেচনা করে সেমিস্টার ফি মওকুফ ও হল খুলে দেওয়ার বিষয় নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের বিবেচনার জন্যই শিক্ষার্থীদের এই  মানবিক আবেদন।

বাস্তবতা:  বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক ছাত্র-ছাত্রী হচ্ছে নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান। অনেকই নিজেদের মাসিক খরচ গুলো নিজেরাই চালানোর চেষ্টা করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশির ভাগ শিক্ষার্থী  টিউশনি করে নিজেদের খরচ চালিয়ে থাকে। সেই সাথে অল্প অল্প করে টাকা জমিয়ে সেমিস্টার ফি জমা করতো । আর এই সময়ে  করোনা মহামারী পরিস্থিতি জন্য বিশ্ববিদ্যালয় সহ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ।  সবাই অবস্থান করছে  নিজ বাড়িতে  প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায়  টিউশন সেবা গুলো বন্ধ । হলে      থাকারও নেই কোন  সুযোগ যে কারণে বাহিরে মেছ নিয়ে থাকতে হয়।এছাড়াও আমাদের আর সেই টাকাও আমরা বাড়িতে থেকে ৬৭% বহন করছিলাম। তাই নতুন করে সেমিস্টার ফি বহন করা অামাদের জন্য অনেক চাপ হয়ে যাবে।

পপপুলেশন সায়েন্স বিভাগের শিক্ষার্থী মহসিনা সরকার বলেন, -এতোদূর থেকে শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা দিতে যাবে নাকি মেস খুঁজবে ? বেডিং-সামগ্রী,বইখাতা টানাটানি অনেক ভোগান্তি। দোলনচাঁপা হলে ২১৪ জন থাকি আমরা, প্রত্যেকের সিংগেল বেড।

এ দিকে ২ জুন (বুধবার) একাডেমিক কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পরীক্ষা গ্রহণের সময় প্রস্তুত থাকবে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল টিম। বিভাগের চাহিদা অনুযায়ী পরীক্ষার সময় পরিবহন সুবিধা প্রদান করবে পরিবহন দপ্তর।পর্যায়ক্রমে কোর্স শেষ হওয়া সকল বিভাগ পরীক্ষা গ্রহণ করতে পারবে। পরীক্ষা গ্রহনের পূর্বেই বিভাগের অভন্ত্যরীন সংস্কার কাজের সমাপ্তি করার নির্দেশনাও প্রদান করা হয়েছে ইঞ্জিনিয়ার দপ্তরকে।

স্থানীয় সরকার ও নগর উন্নয়ন বিভাগের শিক্ষার্থী রিপন মিয়া সহ সকল ছাত্র-ছাত্রীদের মানবিক আবেদনে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এ এইচ এম মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, একাডেমিক কাউন্সিলে আমরা কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি। এখন এ বিষয়ে আমিতো একা কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারবো না তবে সকলের সাথে আলোচনা করে আমরা সিদ্ধান্ত নিব। । হল খোলার বিষয়ে(ভারপ্রাপ্ত) রেজিস্ট্রার কৃষিবিদ ড.হুমায়ুন কবির বলেন, আমাদের কিন্ত;  বিশ্ববিদ্যালয় খোলা হয়নি শুধুমাত্র ধাপে ধাপে পরীক্ষা গুলো নেওয়া হবে। আর হল খোলার বিষয়ে সরকারি ভাবে নিষেধ দেওয়া আছে। সকলের টিকা নিশ্চিত হওয়ার পর সরকারি ভাবে ঘোষণা আসলেই হল খোলে দেওয়া হবে। এর আগে হল খোলা সম্ভব না।

 

শেয়ার করুন
0 মন্তব্য

মতামত দিন

Related Articles