শীত বরণে কুয়াশা উৎসবে মেতেছে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়

দ্বারা hello@anbnews24.com
শীত বরণে কুয়াশা উৎসবে মেতেছে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়
 শওকত জাহান, নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি: শীতের আমেজ কুয়াশাকে বরণ করে নিতে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে দ্বিতীয় বারের মতো কুয়াশা উৎসব ১৪২৮ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
 
৫-৬ জানুয়ারী বুধ ও বৃহস্পতিবার দুই দিনব্যাপী ‘প্রত্যাশার নব কহন, কুয়াশায় অবগাহন’ শিরোনামে অনুষ্ঠিত হয়েছে কুয়াশা উৎসব। যার তত্ত্বাবধানে ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষক ও অভিনেতা মনোজ কুমার প্রামাণিক। শীত জনজীবনকে বিপর্যস্ত করে ও দরিদ্রদের জন্য এক প্রকার কঠিন সংগ্রাম হয়ে দাঁড়ায়।ব্যতিক্রম আয়োজনে শীতকে ভয় না পেয়ে বরণ করে কুয়াশাকে স্বাগত জানিয়েই ভিন্নধর্মী অনুষ্ঠান কুয়াশা উৎসবের আয়োজন।
 
৫ জানুয়ারী বুধবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৌমিত্র শেখর ফানুস উড়িয়ে কুয়াশা উৎসবের উদ্বোধন করেন। দুইদিন ব্যাপী আয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয়টির কেন্দ্রীয় খেলার মাঠকে গ্রামীণ আবহ দিয়ে রঙ বেরঙের আলোতে সাজানো হয়েছে। পুরো ক্যাম্পাস জুড়ে একাধিক মঞ্চে একই সঙ্গে চলছে বিভিন্ন আয়োজন। উৎসবজুড়ে একদিকে কবিতা আবৃত্তি , গানের আসর, নাচ, নাটক, চিত্রকর্ম প্রদর্শনী, স্থিরচিত্র প্রদর্শনী ও চলচ্চিত্র প্রদর্শনী হয়েছে। মাঠ জুড়ে বসেছে বিভিন্ন দোকান।
 
মেলাকে ফুটিয়ে তুলেছে নাগরদোলা। মেলার অংশ হিসেবে দৃষ্টি কেড়েছে আধিবাসী কর্নার।সেখানে পাওয়া যাচ্ছে ট্রেডিশনাল খাবার ও পোষাক। কুয়াশা উৎসবের দ্বিতীয় দিন শাস্ত্রীয় ও রবীন্দ্র সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় দ্বিতীয় দিনের কুয়াশা উৎসব।
 
কুয়াশা উৎসব আয়োজন উদ্ধোধন শেষে প্রদর্শনী দেখতে এসে বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য ড. সৌমিত্র শেখর বলেন, এটি এমন এক উৎসব যেটি এই নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়কে স্বতন্ত্র করে তোলে পরিচিত করবে। যেমনি পৌষ সংক্রান্তির আয়োজন মানেই শান্তিনিকেতনের কথা মনে করিয়ে দেয় । তেমনি কুয়াশা উৎসবের কথা বললেই যেনো নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়কে বোঝা যায় আমরা সেরকম এক পথেই হাটতে চাই। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আইনের মধ্যে থেকে এই আয়োজনকে সহযোগিতা করে যাবে।
 
কুয়াশা উৎসবের সংগঠক শিক্ষক মনোজ কুমার প্রামাণিক বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ভাবনা থেকেই এই উৎসবের শুরু। আমরা শিক্ষকরা কেবল সেটিকে সমন্বয় করে এগিয়ে যাবার কাজ করে যাচ্ছি। শীতের ইতিবাচকতাকে বরণ করে নিতেই এই আয়োজন। আশা করি এই আয়োজন একদিন আরো ব্যপকতা পাবে।
কুয়াশা উৎসব আয়োজনে কোন বিজ্ঞাপন বা পৃষ্ঠপোষকের সহযোগিতা নেয়া হয়নি। তবে উৎসব বন্ধু নামের একটি ফরমের মাধ্যমে অর্থ সহযোগিতা নেয়া হয়েছে। প্রথমবার গণ অর্থায়নে উদযাপিত হয়েছিলো কুয়াশা উৎসব ।
 
 
 
 
 
শেয়ার করুন
0 মন্তব্য

মতামত দিন

Related Articles