পীরগঞ্জে বেশীর ভাগ ইট ভাটায় কাঠ খড়ি পোঁড়ানো হচ্ছে-নেই কোন পদক্ষেপ

দ্বারা hello@anbnews24.com
পীরগঞ্জে বেশীর ভাগ ইট ভাটায় কাঠ খড়ি পোঁড়ানো হচ্ছে-নেই কোন পদক্ষেপ

বখতিয়ার রহমান,পীরগঞ্জ(রংপুর) : রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলায় পরিবেশ আইন উপেক্ষা করে স্থাপিত বেশীর ভাগ ইট ভাটায় জ্বালানী হিসেবে কাঠ খড়ি পোঁড়ানো হচ্ছে অবাধে  । তাতেও নেই কোন পদক্ষেপ । 

চলতি সনের জানুয়ারীর প্রথম সপ্তাহে ঢাকাস্থ পরিবেশ অধিদপ্তরের সমন্বয়ে ক’টি ইট-ভাটায় অভিযান পরিচালিত হলেও গত আড়াই মাসে আর কোন অভিযান পরিচালিত হয়নি । এ কারনে অভিযানের পর থেকে ভাটা গুলিতে নির্বিগ্নে কাঠ খড়ি পোঁড়ানো অব্যহত রয়েছে ।
সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে বিগত ২০০৮ ও ২০০৯ সালে পীরগঞ্জ উপজেলায় ১৩টি ইটভাটা থাকলেও প্রশাসনের পর্যাপ্ত পদক্ষেপের অভাবে চলতি বছর অবৈধ ইট ভাটার সংখ্যা ৫৪টি।

এ সব ইট ভাটা স্থাপিত হয়েছে ফসলী জমি, বনাঞ্চল ও লোকালয়ে । এ সব ইট ভাটার নেই কোন বৈধ কাগজপত্র কিংবা লাইসেন্স ! নেই পরিবেশ পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র। ভাটা স্থাপনের নেই কোন দুরত্ব । পীরগঞ্জ উপজেলা সদরের পার্শ্বে ৩ কিঃ মিঃ মধ্যে ৮টি ইটভাটা স্থাপন করা হয়েছে। উপজেলার চৈত্রকোল ইউনিয়নে ১ কিঃমিঃ মধ্যে স্থাপিত হয়েছে ১০টি ইটভাটা। খালাশপীরে ১ কিঃমিঃ দূরত্বের মধ্যে রয়েছে পৃথক ৬টি ইটভাট। কুমেদপুর ইউনিয়েনর কাঞ্চনপুর ও কুমেদপুরের মাঝামাঝি মাত্র ৫’শ গজের মধ্যেই রয়েছে ৫টি ভাটা । আর এ সকল ইটভাটার প্রত্যেকটিতে কমপক্ষে ৩০ থেকে ৪০ একর পর্যন্ত ফসলী জমি ব্যবহ্রত হচ্ছে । সার্বিক এ পরিস্থিতিতে যেমন পরিবেশের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে, অন্যদিকে আশপাশের জমিগুলো হারাচ্ছে উর্বরতা শক্তি।

 

ঘন ঘন ইট ভাটার চিমনি থেকে নিগর্ত মনোঅক্সাইড, কার্বন-ডাই-অক্সাইড, নাইট্রোজেন পরিবেশ দূষিত সহ লোকালয়ে জটিল রোগব্যাধিরও আশংকা করছেন পরিবেশবীদ ও এলাকাবাসী।
অভিযোগ রয়েছে,পরিবেশ অধিদপ্তর ও কাষ্টম অফিসের কিছু অসাধু কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে গড়ে উঠেছে এ সকল ইটভাটা। যে কারনে দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে অবৈধ ইট ভাটার সংখ্যা। আর নির্বিগ্নে পোড়ানো হচ্ছে কাঠখড়ি ।
এ ব্যাপারে পরিবেশ অধিদপ্তর রংপুর এর উপ-পরিচালক মেজ বাবুল আলম এর সঙ্গে কথা হলে জেলা প্রশাসক এর সঙ্গে কথা বলার পরামর্শ দিয়ে বলেন অভিযান চলমান রয়েছে । চলছে অবৈধ ভাবে গড়ে ওঠা এসব ইটভাটায় ইট তৈরী ও কাঠ খড়ি দিয়ে ইট পোড়ানোর কাজ।

শেয়ার করুন
0 মন্তব্য

মতামত দিন

Related Articles